মঙ্গলবার, নভেম্বর ২৪, ২০২০

জার্মানিকে নিয়ে স্পেনের ছেলেখেলা

  • স্পোর্টস ডেস্ক
  • ২০২০-১১-১৮ ১২:১৩:২৫
image

উয়েফা ন্যাশন্স লিগে জার্মানিকে গুড়িয়ে টুর্নামেন্টের সেমিফাইনালে উঠল স্পেন। নিজেদের মাঠে ৬-০ গোলে হারিয়ে সাবেক বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের নিয়ে ছেলে খেলা করল স্পেন। হ্যাটট্রিক করেছেন তরুণ ফরোয়ার্ড ফেরান তোরেস। প্রতিযোগিতামূলক ফুটবলে এটিই জার্মানির সবচেয়ে বড় হারের দ্বিতীয় কীর্তি।

স্পেনের মাটিতে অতিথি জার্মানি। লা রোজাদের দুর্গে এর আগে জয়ের খুব বেশি সুখস্মৃতি নেই জার্মানদের। স্পেন দলে তারুণ্যের মিছিল। বিপরীতে টনি ক্রুস, নয়্যার, সানেদের নিয়ে গড়া দলটাকেই অভিজ্ঞ মনে হচ্ছিল। কিন্তু খেলা শুরু হতেই মেলে ভিন্ন চিত্র।

গেল সেপ্টেম্বরে জার্মানির মাঠে শেষ মুহূর্তের গোলে ১-১ গোলের ড্র নিয়ে মাঠ ছাড়ে দু'দল। এবার তাই জয় চাচ্ছিল দু'দল। ম্যাচের ১২ মিনিটেই আসে প্রথম বদল। ইনজুরি নিয়ে মাঠ ছাড়েন স্পেনের ক্যানালেস। মাঠে নামেন ফাবিয়ান রুইজ। মিনিট চারেক পর তার এসিস্টেই ম্যাচে লিড নেয় স্পেন। রুইজের কর্নার ম্যানুয়েল নয়্যারদের প্রাচীর গলিয়ে লক্ষ্য খুঁজে নেয় য়্যুভেন্তাস ফরোয়ার্ড আলভারো মোরাতা।

অতিথিদের মাঠে চোয়ালবদ্ধ লড়াই জার্মানদের। ম্যাচে ফেরার প্রচেষ্টা। তবে থিতু হতে পারেননি। প্রথমার্ধের ৩৩ মিনিটে দলকে দ্বিগুণ খুশিতে ভাসান ফেরান তোরেস।

দুই গোল খেয়ে কিছুটা দিশেহারা টনি ক্রুসরা। এলোমেলো ফুটবল খেলতে থাকে। এই সুযোগটা কাজে লাগায় স্প্যানিশরা। মিনিটে চারেক বাদেই মাশুল গোনেন আবার। কোকের পাস থেকে ব্যবধান ৩-০ করেন রদ্রি। ডাই ম্যানশেফটরা লজ্জা নিয়ে বিরতিতে যায়।

দ্বিতীয়ার্ধে ৩ গোলে এগিয়ে থেকে আক্রমণে ধার বাড়ায় রামোসরা। একের পর এক আক্রমণে জার্মানদের রক্ষণদূর্গ কোনঠাসা করে ফেলে। ৫৫ মিনিটে ম্যাচে নিজের দ্বিতীয় গোল করেন ফেরান তোরেস। গোলের হালি পূরণ করে চোখ রাঙ্গাচ্ছিল জার্মানদের বড় পরাজয়ে।

৬১ থেকে ৭১ এই দশ মিনিটে দলে একাধিক পরিবর্তন করেন কোচ জোয়াকিম লো। উদ্দেশ্য একটা গোল করা। কিন্তু আশায় গুঁড়েবালি। উলটো ম্যাচের ৭১ মিনিটে নিজের হ্যাট্রিক পূরণ করেন ফেরান তোরেস। জাতীয় দলের জার্সিতে এর আগে করেছিলেন ৭ ম্যাচে ৪ গোল। এদিন। স্পেনের হয়ে একাই ৩ গোল করলেন ভ্যালেন্সিয়ার এই উইঙ্গার।

শেষদিকে স্পেন দলের গুরুত্বপূর্ণ সব ফুটবলার তুলে নিলেও স্কোরশিটে নাম ওঠাতে পারেনি জার্মানির কেউ। উলটো শেষ মুহূর্তে আরও একগোল করেন মিকেল ওয়ারজাবাল। তাতে ৮৯ বছর পর আবারো ৬-০ গোলের লজ্জার পরাজয় নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয় জার্মানদের। তাতে ৬ ম্যাচে ১১ পয়েন্ট নিয়ে 'এ' গ্রুপে শীর্ষে থেকেই সেমিফাইনাল নিশ্চিত করলো লুইস এনরিক শিষ্যরা।

 

 

 

এশিয়ান টাইমস্/এমজেডআর


এ জাতীয় আরো খবর